Recents in Beach

Google Play App

সাতকানিয়ায় জায়গা জমির বিরোধ নিয়ে মারামারিতে গুরুতর আহত-২: থানায় অভিযোগ দায়ের

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ
বিশ্ববাসী করোনা ভাইরাসের মহামারিতে মহামারির প্রকোপ থেকে দেশেকে বাচাতে জনসমাগম এড়িয়ে চলার জন্য ঘরে আবস্থান করতে সরকার বিভিন্ন প্রকার পদক্ষেপ নিয়েছে।এমনকি সরকারী বেসরকারী সব ব্যাবসা প্রতিষ্টান,শিক্ষা প্রতিষ্টান, কলখারখান বন্ধ থাকার মুহুর্তে সরকারী নির্দেশ অমান্য করে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার বারদোনায় জায়গা জমি সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে ২পক্ষের তুমুল মারামারিতে ইউসুফ নামের ১প্রবাসীসহ ২জন গুরুতর আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।গুরুতর আহত ২জনের মধ্যে সাইহানুর রহমান সজিব নামের ১ছাত্রের অবস্থা আশঙ্খাজনক বলে জানা যায়।

পরে এলাকাবাসীরা এসে আহতদেরকে উদ্ধার করে চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার পদুয়া সাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে আহতদের অবস্থা আশংখাজনক দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন বলে জানা যায়।

গতকাল সকাল ১০টার দিকে সাতকানিয়া উপজেলার সাতকানিয়া ইউনিয়নের বারদোনা ৭নং ওয়ার্ড় এলাকায় মারামারির ঘটনা ঘঠে বলে জানা যায়।

উক্ত ঘটনায় আহতদের অভিভাবক প্রবাসী ইউসুফ বাদী হয়ে মো:মিজান,পিতা-সোলাইমান,রমজান আলি,পিতা-সোলাইমান, আরফাত হোসেন, পিতা-সোলাইমান, হুমায়ুন কবির পিতা-সোলাইমান ও মো:আরমান,পিতা-সোলাইমান নামকে ৬জনকে আসামী করে সাতকানিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,সাতকানিয়ার বারদোনা এলাকায় ইউসুফ গং ও মিযান গংদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জায়গা জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল।এই সুবাদে প্রায় সময়ে বিভিন্নভাবে একে অপরে মধ্যে হিংসাত্মক আচরণ আসছে।এর ধারাবাহিকতায় আহতদের বাড়িতে অতর্কিত হামলা করে বাড়ির আসবাব পত্র ভাংচুর ও মহিলাদেরকে মারধর করেন বলে অভিযোগ সূত্রে জানা যায়।এটি সামাজিকভাবে স্থানীয় মেম্বার ও সমাজের মাতব্বরদের নিয়ে একটি মিমাংসার কথা থাকলেও করোনা ভাইরাসের কারণে কাল ক্ষেপণ হওয়ায় গতকাল ১০টার দিকে উভয় পক্ষের মারামারি সংঘটিত হয়।এই মারামারির গঠনায় প্রবাসী ইউসুফ ও সাইহানুর রহমান সজিব নামের ২জন গুরুতর আহত হন বলে অভিযোগ সূত্রে জানা যায়।

উক্ত মারামারিতে প্রবাসী ইউসুফের ২হাতে রক্তাক্ত জখম হয় এবং সাইহানুর রহমান সজিবের মাথা রক্তাক্ত জখম হয় এবং ফেটে যায়। সাইহানুর রহমান সজিবের মাথায় সেলাই করা হয় বলে জানা যায়।

এব্যাপারে রমজানের কাছে মারামারির বিষয়টি মোবাইলে জানতে চাইলে তিনি ১মে মিড়িয়ার সাতে ক্ষেপে গিয়ে আক্রামনাত্মক কথা বলেন।এবং ঘটনাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা বলেন।পরে তিনি বলেন তাদেরকে মারধর করতে আসছে তাই তারাও মারধর করেন বলে জানান।

তিনি আরো বলেন,এটি ২০বচছর ধরে জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের কারণে প্রতিনিয়ত হয়ে আসছে বলে জানান।এবং ইউসুফ গংরা দীর্ঘদিন ধরে তাদেরকে বিভিন্ন প্রকার হয়রানী করছে বলে জানান।

এব্যাপারে ফরিদুল আলম,নামের এক এলাকাবাসী বলেন,মারধরের ঘটনাটি সত্য বলে জানান।

এব্যাপরে সমাজের সর্দার(মাতব্বর) রাসেলের কাছে মোবাইলে জানতে চাইলে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান বলেন, জায়গা জমি নিয়ে যে সমস্যা ছিল তারা সামাজিকভাবে উভয় পক্ষ থেকে সাদা কাগজে লিখিত আকারে দস্তখত দিয়েছিল সমস্যা সমাধান করার জন্য।কিন্তু লকডাউন হয়ে যাবার কারণে তাদের আর বসার সুযোগ হয় নাই। তারমধ্যে এই ঘটনা হয়েছে বলে তিনি লোকমুখে শুনেছেন এবং তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখেন নাই বলে জানান।

এব্যাপরে অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা সাতকানিয়া থানার এস আই অনুপমের কাছে জানতে চাইলে,তিনি থানায় অভিযোগ দায়েরের কথা স্বীকার করে বলেন তদন্ত করে দেখবে বলে জানান।

এব্যাপারে বাড়িতে হামলা করে আসবাবপত্র ভাংচুরের সময়ে বাড়িতে থাকা আজিজা বেগম বলেন, আমাদের পার্শ্ববর্তী এলাকার সোলায়মানের ছেলে মিজান ও তার দলবল আমাদের বাড়িতে অতর্কিত হামলা করে দরজা ভাংচুর করে আমাদের বাড়িতে ঢুকে আমাদের বাড়ির আসবাবপত্র ভাঙচুর করে। এবং আমাদেরকে মারধর করে চলে যাওয়ার সময় এই ঘটনা বাইরে কাউকে জানালে প্রাণে মেরে ফেলা হবে বলে হুমকি দিয়ে যায় বলে জানান।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য