Recents in Beach

Google Play App

আমি চাই না কোন মা ক্যান্সারে মৃত্যু হোক,এমপি ওয়াসিকা

মোহাম্মদ এরশাদঃ

বাংলাদেশে ক্যান্সার রোগীর মোট সংখ্যা কত তার সুস্পষ্ট পরিসংখ্যান না থাকলেও ইন্টারন্যাশনাল এজেন্সি ফর রিসার্চ অন ক্যান্সার (আইএআরসি) এর হিসাব অনুযায়ী মোট ক্যান্সার রোগীর সংখ্যা ১২ থেকে ১৪ লাখের মধ্যে। বাংলাদেশে বছরে ১ লাখ ২২ হাজার (প্রতিদিন ৩৩৪) মানুষ নতুন করে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়, মারা যায় ৯১ হাজার (প্রতিদিন ২৫০)। নারীদের মধ্যে জরায়ু মুখের ক্যান্সার দ্বিতীয় স্থানে আর বেশীরভাগ নারীই প্রথম এবং প্রধান শিকার হন স্তন ক্যান্সারে।জরায়ু ক্যান্সারঃজরায়ু ক্যান্সার বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল দেশের নারীদের মৃত্যু বরণের অন্যতম কারণ৷ বাংলাদেশের ক্যান্সার আক্রান্ত নারীদের শতকরা ৩০ ভাগই হচ্ছেন জরায়ু মুখের ক্যান্সারের শিকার৷স্তন ক্যান্সারঃএক সমীক্ষায় দেখা গেছে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৯৯০ হতে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত প্রায় ৯ হাজার রোগীর মধ্যে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা শতকরা ১৫.৮৫% এবং ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৭%। যদিও আমাদের দেশে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীর সার্বিক চিত্র যথযথভাবে সংরক্ষন করা হয়নি কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে এরোগে আক্রান্তের হার দিন দিন বাড়ছে। আর সবচেয়ে মারাত্মক কথাটি হচ্ছে যে, যেসব নারী জরায়ু ক্যান্সার আক্রান্ত বয়সের ভিত্তিতে তাদের মলাশয়ের ক্যান্সার হওয়ার প্রবল ঝুঁকি রয়েছে। ২০০৯ সালে ক্যানসার আক্রান্ত হয়ে মারা যান বিশিষ্ট আওয়ামী লীগ নেতা প্রয়াত আতাউর রহমান খান কায়সারের সহধর্মীনি ও জাতীয় সংসদ সদস্যা ওয়াসিকা আয়শা খানের মা নিলুফার কায়সার। এভাবে মাকে হারানোর স্মৃতিকে ধারণ করে এবং আর কোনো নারী যাতে এভাবে মারা না যান সেই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে ২০১৬ সালের ৬ এপ্রিল চিটাগং ক্যানসার কাউন্সিলিং অ্যান্ড কেয়ার সার্ভিস নামের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটি চালু করেন ওয়াসিকা আয়শা খান এমপি, এরপর থেকে এই সংগঠনটি ক্যানসার প্রতিরোধ ও এই রোগ সম্পর্কে জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টির কাজ করে যাচ্ছে।আজ নন্দিত জননেতা আতাউর রহমান খান কায়সার এর সহধর্মিণী, চট্রগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ সভাপতি নারী জাগরণের অন্যতম উদ্যোক্তা মহীয়সী নারী বেগম নিলুফার কায়সার খান এর দশম মৃত্যু মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে “চট্টগ্রাম ক্যান্সার সচেতনতা সহায়ক কেন্দ্র’র” উদ্যোগে ক্যান্সার সচেনতা ও উদ্বুদ্ধ করণ মূলক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।সভায় সভাপতিত্ব করেন- বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগ’র সহ-সভাপতি ওয়াসিকা আয়শা খান এমপি এবং এডভোকেট ফাতেমা ইদ্রিছ এর সঞ্চালনায় এতে মূখ্য আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম বিএমএ সভাপতি অধ্যাপক ডা: মুজিবু লহক খান। এতে আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় ক্যান্সার ইনষ্টিটিউটের সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান ডা: হাবিবুল্লাহ তালুকদার, চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন ডা: মোহাম্মদ আজিজুর রহমান সিদ্দিকী, চমেক এর অধ্যাপক শিশু ও নবজাতক বিভাগ ডা: বাসনা মুহুরী, ডা: শাহনাজ জাহাঙ্গীর (স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ), জেসমিন সুলতানা পারু (নারী নেত্রী), ডা: নাহিদা খানম শিমু, সমাজ সেবা অফিসার মো: শহিদুলইসলাম ও মা ও শিশু হাসপাতালের সহ-সভাপতি জনাব মোহাম্মদ মোরশেদ হোসেন প্রমুখ।সভায় বক্তারা ক্যান্সার বিষয়ে উপস্থিত জনগণকে সচেতনতামূলক বক্তব্য রাখেন এবং ক্যান্সার উপক্রম দেখা দিলে ভীত না হয়ে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহণ করার অনুরোধ করেন। এর পাশাপাশি ক্যান্সারের বিষয়ে সচেতন থাকার পরামর্শ দিয়ে টিকাগ্র হণের আহ্বান জানান।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য