Recents in Beach

Google Play App

খুব সম্ভবত আবরার চৌধুরী বাপ্পী ওরফে (জিপসি রুদ্র) হতো পরবর্তী একরামুল হক

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
বাঁশখালী থানার অফিসার আতাউরকে কে বা কারা জিপসি রুদ্র সম্পর্কে বলেছিলো , জিপসি রুদ্রই পুকুরিয়ার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী । অফিসার আতাউর এই তথ্যের ভিত্তিতে তদন্ত করতে যায় পুকুরিয়ায় । দাউদ মানিককে জিজ্ঞাস করে , বাপ্পী (জিপসি রুদ্রের ডাকনাম) ৮নং ওয়ার্ড চৌধুরী পাড়া এই ছেলেটিকে চিনে কি না ? দাউদ মানিক বলে, হ্যাঁ চিনি । ওনার পুরা নাম আবরার চৌধুরী বাপ্পী । উনি জিপসি রুদ্র নামে লেখালেখি করে এবং সিনেমা বানায় । উনার বাপ একজন সম্মানিত শিক্ষক । মারা গেছেন । জিপসি রুদ্র একজন উগ্রদেশপ্রেমিক । সাবেক ছাত্রলীগ নেতা । অনলাইনে উগ্রদেশপ্রেম, ধর্মনিরপেক্ষ অসাম্প্রদায়িক চেতনা এবং জাতির পিতার আদর্শ কায়েমে লেখালেখি করে । যার জন্যে উনি বারবার উগ্রধর্মান্ধ মৌলবাদীদের রোষনলে শিকার হয় । গতবছর এইসময়ে উনি একজন রাজাকার যুদ্ধাপরাধীর মেয়ে এবং জামাতি আকিদার আওয়ামী এমপির রোষানলের শিকার হয়ে ৫৭ ধারায় কারাগারে অন্তরীন ছিলেন । আড়াই মাস পরে উনি হাইকোর্ট থেকে জামিনে মুক্ত হয়ে আসে । এখন উনি একটা মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানির প্রোডাকশন ম্যানেজার হিসাবে কর্মরত আছেন । 

দাউদ মানিক পাল্টা প্রশ্ন করেন অফিসার আতাউরকে , উনার সম্পর্কে কেনো জানতে চাচ্ছেন ? 

উত্তরে অফিসার আতাউর বলেন, আমাদের কাছে তথ্য আছে উনি পুকুরিয়ার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী । 

দাউদ মানিক দাঁতে দাঁত কামড়ে বলেন , আল্লাহ আল্লাহ কি বলছেন এইসব ! উনি গত তিন চার বছর ধরে এলাকায়ও আসেন না ! বেশির ভাগ সময় অফিসের কাজে দেশের বাইরে থাকেন । উনার গোটা পরিবার আওয়ামীলীগের  রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত । বাপ্পী এলাকার প্রায় পঞ্চাশ ষাটজন বেকার ছেলেকে চাকরি দিয়ে এলাকায় বেকারত্ব কিছুটা হলেও দূর করেছে । আর আপনি বলছেন উনি মাদক ব্যবসায়ী ? এইসব উনার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র । উনি এর আগেও ষড়যত্রের শিকার হয়েছে এখনো ষড়যন্ত্রকারীরা তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে । এই অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা , বানোয়াট এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত । 

অফিসার আতাউর বলেন , ঠিকাছে আমরা আরো তদন্ত করে দেখি ! 

দাউদ মানিক বলে, বাপ্পীর বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র হচ্ছে । আপনারা অধিকতর তদন্ত করেন । শুধু শুধু মিথ্যা অভিযোগের উপর কারো বিরুদ্ধে একশনে যাবেন না । 

অফিসার আতাউর বলেন , ঠিকাছে । এই বিষয়ে আর কথা বলার দরকার নাই । আমার যা তথ্য আমি পেয়েছি । 

জিপসি রুদ্রের ফেইসবুক আইডি ঘুরে দেখলে বুঝা যায় , জিপসি রুদ্র একজন উগ্রদেশপ্রেমিক লেখক । যে মুক্তিযুদ্ধের ধর্মনিরপেক্ষ অসাম্প্রদায়িক চেতনা এবং জাতির পিতার আদর্শ তরুণ প্রজন্মের মগজে মননে বোধে চিন্তায় চেতনায় ঢুকাতে চান । তার লেখায় বারবার উঠে আসে ধর্মনিরপেক্ষ অসাম্প্রদায়িক চেতনা তা এবং জাতির পিতার আদর্শের কথা । সে বলে, দেশকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ফেরত নিয়ে যেতে হলে উগ্রধর্মান্ধদের টুঁটি  যেমন চেপে ধরতে হবে ঠিক তেমনি নয়া প্রজন্মে মগজে দেশপ্রেম এবং দেশের জন্ম ইতিহাস ঢুকাতে হবে । অন্যথায় বেহাত হয়ে যাবে মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে অর্জিত মহান বিপ্লব । 

কিছুদিন আগে আমরা দেখতে পেয়েছি , একজন আওয়ামীলীগের ডাই হার্ট কর্মী একরামুল হককে মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে কিভাবে ক্রসফায়ারে দিয়ে খুন করা হয়েছে । একই প্রক্রিয়ায় হয়তো বাপ্পীকেও সরিয়ে দিতে চাচ্ছে আওয়ামী বিরোধী অপশক্তি । 

বাপ্পীর একসময়ের রাজনৈতিক সহযোদ্ধা বর্তমানে দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আনিসুল হক চৌধুরীর সাথে বাপ্পী সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাপ্পী একজন নিরেট দেশপ্রেমিক আওয়ামী বান্ধব লেখক । সে মুক্তিযুদ্ধের ধর্মনিরপেক্ষ অসাম্প্রদায়িক চেতনা এবং জাতির পিতার আদর্শ কায়েমে লেখালেখির জন্যে বারবার উগ্রধর্মান্ধ মৌলবাদীদের টার্গেটে পরিনত হয়েছে । বাপ্পীর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগে আমি ভীষণ ক্ষুব্ধ , হতাশ এবং চিন্তিত । আমরা একরামুল হককে হারিয়েছি ! আমরা বাপ্পীকে হারাইতে চাই না । বাপ্পীদের মতন উগ্রদেশপ্রেমিক চেতনা সমৃদ্ধ আদর্শিক কর্মী আওয়ামীলীগের জন্যে এই সময়ে খুবই দরকার । 

বাপ্পীর সাথে মাদক ব্যবসার সম্পৃক্ততার অভিযোগ এনে মন্তব্য জানতে চাইলে বাপ্পী বলেন , আমি নিজের অফিস , লেখালেখি এবং ফিল্ম মেইকিং নিয়ে এতোই ব্যস্ত থাকি অতিপ্রয়োজনেও বাড়ি ঘরে যেতে পারি না । শেষ কবে গ্রামের বাড়ি গিয়েছিলাম আমার মনেও নাই । আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হচ্ছে । সব ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে একদিন ঠিকই বিদ্রোহী সূর্যটা উঠবে জ্বলে । 

বাপ্পীর বিষয়ে অফিসার আতাউরের সাথে যোগাযোগ করা হলে পুলিশ অফিসার আতাউর বলেন , হ্যাঁ আমাদের সোর্স আমাদেরকে বাপ্পীর বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার তথ্য দিয়েছিলো । আমরা বাপ্পী সম্পর্কে বেশ কয়েকজন থেকে ইনফরমেশন নিয়েছি । কিন্তু তার বিরুদ্ধে আমাদের কাছে কেউই কোন নেগেটিভ তথ্য দেয় নাই ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য