Recents in Beach

Google Play App

বাঁশখালীতে পুকুরে ডুবে বাহারছড়া ইউনিয়নের এক জে.এস.সি পরীক্ষার্থীর মৃত্যু

মোহাম্মদ এরশাদ 

বাঁশখালী উপজেলার বাহারছড়া এলাকায় পুকুরের পানিতে ডুবে রত্নপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী জে.এস.সি পরীক্ষার্থী মুন্নি আক্তার মনু (১৪) মৃত্যু হয়েছে।

আজ শনিবার (২ নভেম্বর) ভোর সকাল ৬টার দিকে পুকুর ঘাটে নামাযের অযু করতে গিয়ে (মুখ ধুতে গিয়ে) পা পিছলে পানিতে পড়ে ডুবে গিয়ে জে.এস.সি পরীক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে।

মুন্নি ওই এলাকার আহম্মদ কবিরের কন্যা। আজ পশ্চিম বাঁশখালী হাইস্কুল কেন্দ্রে তার জে.এস.সি পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাহারছড়া ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের বাঁশখালা গ্রামের আহমদ কবিরের কন্যা মুন্নি আক্তার (১৪) ভোর সকালে ঘুম থেকে উঠে বাড়ীর সামনের পুকুরে নামায পড়ার জন্য অযু করতে গিয়ে (মুখ ধুতে গিয়ে) উঁচু পাকা ঘাটের সিড়িতে পা পিছলে পানিতে পড়ে যায়। মুন্নি মুখ ধুতে গিয়ে ১ ঘন্টা পরও বাড়ী ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন খোঁজতে থাকে। বান্ধবীর বাড়ীতে খোঁজ নেয়ার পর পুকুরঘাটের কিনারে স্যান্ডেল দেখে মুন্নি পানিতে পড়ে গেছে সন্দেহ করে সবাই পানিতে নেমে পড়ে। ১ঘন্টা পানিতে ডুব দিয়ে খোঁজ করার পর পানি থেকে প্রতিবেশি মোস্তফা আলী পানিতে ডুবে যাওয়া নিহত মুন্নি আক্তারের লাশ উদ্ধার করে। স্থানীয় ডাক্তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন।  আহমদ কবিরের ৪টি কন্যা সন্তান রয়েছে।

নিহতের বোন উপকূলীয় ডিগ্রী কলেজের ছাত্রী তৌহিদা আক্তার বলেন, বোন মুন্নি ভোরবেলা ঘুম থেকে উঠে কিছুক্ষণ পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিয়েছিল। একটু একটু আলো দেখা গেলে পুকুর ঘাটে মুখ ধুতে বের হয়। এ সময় বাড়ীর সকলেই ঘুমে ছিল। ঘুম থেকে উঠে বাড়ীর সকলেই মনে করেছে মুন্নি সহপাঠি কারো বাড়ীতে পরীক্ষার ব্যাপারে পড়া নিয়ে জানতে ও  খবর নিতে গেছে। দীর্ঘক্ষণ ঘরে ফিরে না আসায় খুঁজতে গিয়ে দেখা যায় মুন্নি পানিতে ডুবে আছে।

প্রতিবেশি চাচাত ভাই কামরুল ইসলাম ও মোক্তার আহমদ বলেন, ভোরবেলা মুন্নিকে খোঁজতে গিয়ে ডুবন্ত অবস্থায় পানি থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। সে সাঁতার জানত না। উঁচু ঘাট থেকে পা পিছলে পড়ে গেছে। পুকুরের গভীরতা বেশি না। এ মৃত্যুতে অনেকে জিনের আছর বলে ধারণা করছে।

বাহারছড়া ইউনিয়নের বাঁশখালা গ্রামের ইউপি সদস্য মো: রোশনুজমান বলেন, আজকে মুন্নি আক্তারের জে.এস.সি পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। চার বোনের মধ্যে সে সকলের ছোট, শান্ত ও স্বভাবের এই মেয়েটি সে মেধাবীও ছিল। তার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নামছে।

বাঁশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তদন্ত কামাল উদ্দীন বলেন, জে.এস.সি পরীক্ষার্থী মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। পানিতে ডুবে মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ায় প্রশাসনিক অনুমতি নিয়ে ওই ছাত্রীর পরিবার দাফনের ব্যবস্থা সম্পন্ন করেছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য